ট্রাম্প শিবির: আইনি লড়াই মাত্র শুরু হয়েছে

0

মার্কিন নির্বাচনে প্রতিপক্ষ জো বাইডেন জয় পেলেও কারচুপির অভিযোগ তুলে এখনো পরাজয় স্বীকার করেননি বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আইনি প্রক্রিয়া চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। যদিও রাশিয়া ও চীনের মতো কয়েকটি রাষ্ট্র ছাড়া অধিকাংশ রাষ্ট্রনেতারা বাইডেনকে অভিনন্দন জানিয়েছেন এবং নতুন সরকারের সঙ্গে কাজ করার কথা জানিয়েছেন।

তবে ট্রাম্পের মিত্ররা আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনের ফলাফল বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন। তারা জানিয়েছেন, নির্বাচনী ফলাফলের বিরুদ্ধে সবেমাত্র আইনি লড়াই শুরু হয়েছে। সুতরাং নির্বাচনী প্রক্রিয়া শেষ হতে অনেক দেরি রয়েছে।হোয়াইট হাউসের প্রেস সচিব কেইলি ম্যাকেনানি এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, নির্বাচন এখনো শেষ হয়নি, এখনো অনেক দেরি আছে। সবে তো আইনি প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

অবশ্য ভোট গ্রহণ কিংবা গণনা প্রক্রিয়ায় কীভাবে অনিয়ম হয়েছে, তার কোনো প্রমাণ দিতে পারেননি এই নারী মুখপাত্র। এমনকি নির্বাচনী ফল ঘোষণা শুরুর পর থেকেই নানা অভিযোগ করলেও তার ব্যাপারে এখন পর্যন্ত কোনো প্রমাণ পেশ করতে পারেননি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পও।ট্রাম্প ও প্রচার শিবির নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগ আনলেও দেশটির নির্বাচনের সঙ্গে জড়িত কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, জালিয়াতির ব্যাপারে কোনো প্রমাণ তাদের কাছে নেই। ইউরোপীয় একটি পর্যবেক্ষক সংস্থাও বলেছে, নির্বাচনে কোনো জালিয়াতি হয়নি।

মার্কিন গণমামধ্যম সিএনএন বলছে, বাইডেনকে স্বীর্কতি দেওয়া বা পরাজয় মেনে নেওয়ার ক্ষেত্রে রিপাবলিকান শিবিরে বিভক্তি দেখা দিয়েছে। যেমন- ট্রাম্পের জামাতা ও উপদেষ্টা জারেড কুশনার, ফার্স্ট লেডি মেলানিয়াসহ অন্যরা পরাজয় মেনে নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। কিন্তু ট্রাম্পের দুই ছেলে এবং কিছু কর্মকর্তা আইনি লড়াইয়ের পক্ষে।অথচ প্রভাবশালী রিপাবলিকান নেতা মিট রমনি এবং দলটির সাবেক প্রেসিডেন্ট জর্জ বুশও বাইডেনকে সমর্থন দিয়েছেন। অনেক রিপাবলিকান নেতা আবার ট্রাম্পের ভয়ে মুখ খুলছেন না।

Leave A Reply

Your email address will not be published.